ভিটামিন সি এর কাজ, উৎস এবং অভাবজনিত রোগ

দেহের জন্য ভিটামিন সি অতি প্রয়োজনীয় উপাদান। এই ভিটামিন পানিতে দ্রবীভূত হয় এবং সামান্য তাপেই নষ্ট হয়ে যায়। ভিটামিন ‘সি’ দেহে জমা থাকে না তাই প্রতিদিন খাওয়া দরকার। ভিটামিন ‘সি’ পেশি, দাঁত মজবুত করে, ক্ষত নিরাময় ও চর্মরোগ রোধে সহায়তা করে, কণ্ঠনালি ও নাকের সংক্রমণ প্রতিরোধ করে।

মানসম্মত ডায়েট চার্ট, স্বাস্থ্য টিপস এবং পুষ্টিকর খাবারের রেসিপির ভিডিও দেখতে পুষ্টিবাড়ির ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন… ইউটিউব চ্যানেলটিতে প্রবেশ করতে এখানে ক্লিক করুন।

উৎস
টক জাতীয় ফল আমলকি, আনারস, পেয়ারা, কমলালেবু, লেবু, আমড়া ইত্যাদি ফলে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ থাকে। সবুজ শাকসবজি ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো, লেটুসপাতা থেকে আমরা ভিটামিন ‘সি’ পাই। পাকা ফল অপেক্ষা কাঁচা সবজি ও ফলে এই ভিটামিন বেশি থাকে। এছাড়া কাঁচামরিচ, পুদিনা পাতা, ধনে পাতা, সজনে পাতা, মূলাশাক ইত্যাদিতেও ভিটামিন সি পাওয়া যায়।

ভিটামিন সি এর কাজ

কাজ 

  • কোলাজেন নামক আমিষ তৈরী এবং রক্ষণাবেক্ষণে সাহায্য করে
  • চর্বি ও আমিষ বিপাকে সাহায্য করে
  • রক্ত তৈরী করার জন্য লৌহ এবং কপারকে ব্যবহৃত করতে সাহায্য করে
  • চামড়া মসৃণ এবং উজ্জল রাখে
  • দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখে
  • ক্ষতস্থান তাড়াতাড়ি শুকাতে সাহায্য করে ও সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ করে

অভাবজনিত রোগ

১. যাঁদের শরীরে ভিটামিন সি-এর অভাব রয়েছে, তাঁরা খুব সহজে ক্লান্ত হয়ে পড়েন। শরীরে শক্তি কমে যায়, অবসন্ন হয়ে পড়েন।
২. শরীরে ভিটামিন সি-এর ঘাটতি হলে বিরক্তিভাব দেখা দেয়। মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়।
৩. যাদের শরীরে ভিটামিন সি-এর ঘাটতি হয়, তাদের হঠাৎ করে ওজন কমে যেতে পারে।
৪. ভিটামিন সি-এর অভাব হলে গিঁটে ব্যথা বা পেশিতে ব্যথার সমস্যা হয়।
৫. ভিটামিন সি-এর অভাব হলে দেহে কালশিটে দাগ পড়ে।
৬. ভিটামিন সি দাঁত ও মাড়ির স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে। এর ঘাটতি দেখা দিলে এসব অংশে সমস্যা হতে পারে।
৭. ত্বক ও চুল শুষ্ক হয়ে যাওয়াও ভিটামিন সি-এর ঘাটতির লক্ষণ।
৮. ভিটামিন সি-এর ঘাটতি হলে শরীরে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কমে যায়।

প্রাপ্ত বয়স্কদের দেহে ভিটামিন ‘সি’-এর অভাব প্রকট হলে নিুলিখিত লক্ষণগুলো দেখা দেয়ঃ
– হাঁড়ের গঠন শক্ত ও মজবুত হতে পারে না।
– হাড় দুর্বল ও ভঙ্গুর হয়ে যায়।
– ত্বক খসখসে হয়, চুলকায়, ত্বকে ঘা হলে সহজে তা শুকাতে চায় না।

স্কার্ভি রোগ হয়
ভিটামিন ‘সি–র অভাবে স্কার্ভি রোগ হয়। স্কার্ভি রোগ হলে দাঁতের মাড়ি ফুলে যায়, রক্ত পড়ে ও দাঁত নড়বড়ে হয়ে যায়। ভিটামিন ‘সি–র অভাবে হাত-পায়ের গিঁটে ব্যথা হয় এবং শরীরে কোন ক্ষত হলে সহজে সারতে চায় না। শিশুদের মধ্যে ভিটামিন ‘সি–র অভাব প্রায়ই দেখা দেয়। ভিটামিন ‘সি–র প্রধান উৎস হলো শাকসবজি ও টক ফল৷ যেমন পাতাবহুল শাকসবজি, কাঁচামরিচ, বাঁধাকপি, টমেটো, আমলকি, পেয়ারা, লেবু, আমড়া, বাতাবি লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি–পাওয়া যায়। সাধারণত রান্নার তাপে অধিকাংশ ভিটামিন নষ্ট হয়ে যায় তাই কাঁচাফল ও সালাদ খাওয়া ভালো।

Leave a Reply