বাংলা ছায়াছবিঃ ভাত দে

ভাত দে

ভাত দে, এটি ১৯৮৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশী চলচ্চিত্র। বাংলাদেশের বিখ্যাত সম্পাদক, কাহিনীকার ও চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন ছবিটির সংলাপ, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন । ছবিটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আলমগীর, শাবানা, রাজীব, আনোয়ার হোসেন, শিশুশিল্পী হিসেবে আঁখি আলমগীর। ছবিটি পরিচালনা করে শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ পরিচালক আমজাদ হোসেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ পরিচালক,চিত্রনাট্যকার ও সংলাপ রচয়িতা (১৯৮৪) পুরস্কার লাভ করেন।

জরি একজন গরিব বাউল শিল্পীর মেয়ে। যে কিনা ছোটবেলায় অভাবের কারনে মাকে হারায়, অন্ধ বাউল বাবাকে নিয়ে ছোট বেলা থেকেই যার সংগ্রামী ও অতি অভাব অনটনের সংসার। জরি যখন বড় হয় একদিন তাঁর বাবাও দুমুঠো ভাত যোগাড় করতে গিয়ে মারা যায়। এরপর থেকে সহায় সম্বলহীন এক অসহায় দরিদ্র ‘জরি’র অতি করুন কাহিনীর একটি সফল চিত্ররুপ ‘ভাত দে’ ছবিটি।

ছবিটির পরিচালক আমজাদ হোসেন ঢাকা ক্লাবের একটি নির্জন রুমে এক মাস টানা কাজ করে স্ক্রিপ্ট রেডি করেছিলেন। ঢাকার অনেক সাংবাদিকদের সামনে মানিকগঞ্জেরনদীর পাড়ে প্রথম দিন শুটিং হয়েছিল। আমজাদ হোসেন স্পটটি এমনভাবে তৈরি করেছিলেন যে একটি ভাঙাচোরা বাড়ি, পাশে বাঁশঝাড়। বাড়িটির চালে বাঁশের আগা বাতাস হলেই বাড়ি খায়। সেখানে অভাগিনী বেশে শাবানা বাস করবেন। কিন্তু শাবানা যখন শট দিচ্ছিলেন তখন তার পড়নে ইস্ত্রি করা শাড়ি ছিল যা একেবারে ভিখারি গোছের চরিত্রের সঙ্গে মানাচ্ছিলনা তারপর মানিকগঞ্জের এক গরিব মহিলার একটি শাড়ি জোগাড় করে শুটিংটি করতে হয়েছিল।

সুত্রঃ উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে। 

Leave a Reply