পেটের মেদ বা চর্বি কমানোর সহজ উপায়

অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভাসের কারনে পেটে অতিরিক্ত মেদ বা চর্বি জমে যায়। অতিরিক্ত মেদ বা চর্বি আপনাকে শুধু বিব্রতই করেনা, এটা আপনার জন্য ক্ষতিকর। পেটে মেদ বা চর্বি হলে চলা-ফেরায় যেমন কষ্ট হয়, তেমনি নষ্ট হয় সৌন্দর্যও। এছারাও আপনার বিশাল পেট অনেকের কাছে আপনাকে হাসির পাত্র করে তুলে। দীর্ঘ সময় বসে বসে কাজ করা, দৈহিক পরিশ্রম কম হওয়ার কারণে পেটে মেদ জমতে থাকে। ফলে শরীরচর্চার সময় যারা বের করতে পারছেন না, তারা প্রতিদিনকার কিছু সহজ অভ্যাসের মাধ্যমে কমিয়ে ফেলতে পারেন শরীরের অতিরিক্ত মেদ। তাই জেনে নিন ঘরে বসেই পেটের মেদ কমানোর উপায় সম্পর্কে।

মেদ ভুড়ি কমানোর উপায়

সকাল শুরু করুণ লেবুর শরবৎ দিয়ে
পেটের চর্বি কমানোর জন্য এটি হচ্ছে সবচাইতে কার্যকরী উপায়। ১ গ্লাস হালকা গরম পানিতে লেবু চিপে সরবত করে সঙ্গে একটু লবণ মিশিয়ে নিন। এভাবে প্রতিদিন চালিয়ে যান, এই পানীয় আপনার বিপাক প্রক্রিয়া বাড়িয়ে পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

চকচকে সাদা চালের ভাত কম খাবেন
সাদা চালের ভাত খাবেন না। সাদা চালে প্রচুর শর্করা থাকে যা পেটে চর্বি জমাতে প্রধান ভূমিকা রাখে। সাদা চালের ভাতের বদলে গমের আটার রুটি যোগ করে নিন আপনার প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায়। তাছাড়া বাদামী চালের ভাত, গমের আটার রুটি, ওটস এবং সবুজ শাক সবজী যুক্ত করে নিতে পারেন।

চিনিযুক্ত খাবার থেকে দূরে থাকুন
চিনিকে না বলুন। মিষ্টি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার, কোল্ড ড্রিংকস এবং তেলে ভাজা স্ন্যাক্স ফুড থেকে দূরে থাকুন। এ জাতীয় খাবারগুলো আপনার পেট ও উরুতে খুব দ্রুত চর্বি জমিয়ে ফেলে। তাই এগুলো খাওয়ার পরিবর্তে ফল খান।

প্রচুর ফলমূল ও শাক সবজি খান
প্রতিদিন বেশি বেশি শাক সবজি ও ফলমূল খাবেন এর ফলে আপনার শরীর হয়ে উঠবে অতিরিক্ত চর্বি মুক্ত। তাছাড়া এই অভ্যাসটি আপনার দেহে এন্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন এবং খনিজলবণ এর ঘাটতি পূরণ করবে।

চর্বি যুক্ত খাবার পরিহার করুন
যতটা সম্ভব চর্বি যুক্ত খাবার পরিহার করুন। এর ফলে আপনার পেটের চর্বি দীগুণ হারে কমতে শুরু করবে এবং আপনার শরীরের গঠন স্বাভাবিক ও সুন্দর হবে। কারণ উচ্চ তেলযুক্ত খাবার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় চর্বি জমিয়ে রাখে।

প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করুণ
পেটের মেদ দ্রুত কমাতে চাইলে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুণ। তাহলে শরীরের মেটাবলিজম বা বিপাকের হার বাড়ানোর পাশাপাশি শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলোকে দূর করে দিবে। মেটাবলিজম বাড়ার ফলে দেহে চর্বি জমতে পারে না ও বাড়তি চর্বি ঝরে যায়।

উপকারী মসলা যুক্ত খাবার খাবেন
দারুচিনি, আদা, রসুন ও গোল মরিচ দিয়ে তরকারী রান্না করার চেষ্টা করুন। কারণ এসব মশলা পেটের চর্বি এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে ম্যাজিকের মতো। এসব মসলা শরীরে ইনসুলিনের পরিমান বাড়িয়ে আপনার রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাবে ও পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

পর্যাপ্ত ঘুমান
ঘুম ভালো হলে শরীরে মেদ কম জমে এবং জমা মেদও ঝরতে সাহায্য করে। দৈনিক কমপক্ষে ৮ ঘন্টা ঘুমানো দরকার, কারন পর্যাপ্ত ঘুম শরীরের মেটাবলিজম বাড়িয়ে দেয়।

সবকিছু করার পরেও আপনাকে যেটা করতে হবে তাহলো হালকা ব্যায়াম বা হাটাহাটি। মেদ কমাতে ব্যায়ামের বিকল্প নেই। শরীরকে ঠিক রাখতে প্রতিনিয়ত ব্যায়াম করতে হবে। উপরের নিয়ম গুলো মেনে চললে আপনার অতিরিক্ত পেট কমতে বাধ্য। সঠিক উপায়ে খাবার হল পেটের মেদ বা চর্বি কমার আদর্শ উপায়।

Leave a Reply