সৌন্দর্য ও তারুণ্য ধরে রাখে যে খাবার

তারুণ্য ধরে রাখতে কে না চায়। সুন্দর এই ত্বককে আরও বেশি লাবণ্যময়ী করে তুলতে কতোই না প্রচেষ্টা। দীপ্তিময় সুন্দর রূপকে ধরে রাখতে অনেকেই ব্যবহার করেন নানা কেমিক্যাল। এগুলো একদিকে যেমন ব্যয়বহুল, অপরদিকে তেমন ক্ষতিকারক। তাই আজই ছুড়ে ফেলে দিন ত্বক পরিচর্যাকারী সব পণ্য। শরীরের আভ্যন্তরীণ অঙ্গ প্রত্যঙ্গকে সতেজ রেখে তারুণ্যকে ধরে রাখতে পারে শুধু সঠিক ও পুষ্টিকর খাবার। ত্বকের যত্নের পাশাপাশি এই খাবার গুলি তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে। আসুন জেনে নেই, এমনই কিছু খাবারের তালিকা যা আপনার তারুণ্যকে ধরে রাখতে পারে।

সৌন্দর্য ধরে রাখে যে খাবার

পানি
শরীরের সঠিক তারুণ্য ধরে রাখতে পানির কোন জুড়ি নেই, তাই প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করতে হবে। এটি শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এবং শরীরের কোষ গুলিকে সতেজ রেখে স্বাস্থ্যকর অবস্থা বজায় রাখতে সাহায্য করে। তাই তারুণ্য ধরে রাখতে প্রথমেই পানি দিয়ে শুরু করতে হবে।

বাদাম
বাদামের মধ্যে রয়েছে উপকারী তেল ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড। এই স্বাস্থ্যকর তেল ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া ত্বকের স্থিতিস্থাপকতার উন্নতির জন্য সেলেনিয়াম হচ্ছে একটি প্রয়োজনীয় উপাদান যা বাদামে রয়েছে।

মাছের তেল বা তেলযুক্ত মাছ
মাছের তেল প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড থাকে যা তারুণ্য ধরে রাখে এবং অকাল বার্ধক্য কমাতে সাহায্য করে। তাই অকাল বার্ধক্য রোধে বা তারুণ্য ধরে রাখতে এই তেল খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন।

অলিভ অয়েল
অলিভ অয়েলে রয়েছে স্বাস্থ্যকর মনোস্যাচুরেটেট চর্বি এবং ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড। এটি ত্বকের শুষ্কতা দূর করে যে কোন দাগ দূর করতে সাহায্য করে থাকে। তাছাড়া এটি হার্টের জন্য খুব উপকারী। এই তেল রান্নায় ব্যবহার করতে পারেন।

গ্রিন টি বা সবুজ চা
তারুণ্য ধরে রাখতে গ্রিন টি বা সবুজ চা প্রশংসিত একটি পানীয়। সবুজ চায়ে রয়েছে একাধিক পুষ্টি উপাদান ও খনিজ পদার্থ যেমন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ভাঁজহীন ত্বক এবং আভ্যন্তরীণ অবস্থা ভালো রাখতে সাহায্য করে।

ডার্ক চকলেট
ডার্ক চকলেট প্রোটিন ও ভিটামিন বি সমৃদ্ধ অত্যন্ত পুষ্টিকর একটি খাবার যা চুলের গুনগত মান ভালো করে। এছাড়া এটি শরীরের বাড়তি চর্বি পুড়িয়ে ওজন কমাতে সহায়তা করে।

টমেটো
টমেটো ত্বকে কোলাজেন তৈরি করে এবং ত্বকে প্রোটিনের সরবারহ বজায় রাখে যা ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে এবং রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করে। এছাড়া এতে লিকোফেইন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সূর্যের ক্ষতিকর আলট্রা ভায়লেট রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

রসুন
রসুনের মধ্যে রয়েছে এলিসিন নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বলিরেখা কমায় এবং অকাল বার্ধক্য রোধে সাহায্য করে। তাই কাঁচা রসুন খাওয়া খুব উপাকারী।

পালংশাক
পালংশাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং ই রয়েছ যা সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে থাকে। তাই যদি তারুণ্য ধরে রাখতে চান, তবে পালংশাক খাদ্য তালিকায় রাখুন। রান্না বা সালাদ যেকোনোভাবে খেতে পারেন পালংশাক।

গাজর
গাজর ভিটামিন এ এর ভালো উৎস যা কোষের যেকোনো ধরনের ক্ষতি, ত্বকের কালো দাগ ও অস্বাভাবিক রঙ ইত্যাদি সমস্যা সারিয়ে তোলে। নিয়মিত গাজর খেলে তা ত্বককে উজ্জ্বল ও তারুণ্যদীপ্ত করে তোলে। এছাড়া এটি চোখের আশেপাশের ত্বকের রক্ত প্রবাহ ঠিক রাখে।

আপেল
আপেলে থাকা পলিফেনল ফ্রি রেডিকেলের বিরুদ্ধে কাজ করে। ফ্রি রেডিকেল কোষকে ক্ষতিগ্রস্ত করে এবং অকাল বার্ধক্যের জন্য দায়ী। এছাড়া আপেলে রয়েছে উচ্চ আঁশ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।

বীজ জাতীয় খাবার
যে কোনো ধরনের বীজ যেমন সূর্যমুখী বীজ, তিলের বীজ, ও কুমড়ার বীজ ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এতে আছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড যা চেহারায় কোমলতা ফিরিয়ে নিয়ে আসে। তাই প্রতিদিন খাবার তালিকায় এজাতীয় খাবার সামান্য হলেও রাখতে পারেন।

ব্রকলি
ব্রকলি বয়স বৃদ্ধির প্রক্রিয়াটিকে ধীরে করে থাকে। এতে সালফারোফেন এবং ইনডোল রয়েছে যা স্ট্রেসের সাথে লড়াই করে ক্যান্সারের কোষ ধ্বংস করে দেয়।

রঙ্গিন ফল
সুন্দর ত্বক ধরে রাখতে সবচেয়ে সেরা খাবার হল রঙ্গিন ফল কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে এ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে। যা রোদের পোড়া কালো দাগ থেকে ত্বককে রক্ষা করে। তাছাড়া এসব ফলে দীর্ঘদিন যৌবন ধরে রাখতে সহায়তা করে।

সবুজ শাকসবজি
সবুজ শাক-সবজি লৌহ, ফলেট, ক্লোরোফিল, ভিটামিন ই, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন এ, ভিটামিন কে, ফাইবার, প্রোটিন এবং ভিটামিন সি এর ভালো উৎস। এগুলো ত্বককে ভালো রাখতে কার্যকারী ভূমিকা রাখে। তাই উজ্জ্বল ত্বকের জন্য প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় এটি রাখা উচিত।

পেঁপে
পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ই ও বিটা-ক্যারোটিন রয়েছে। উপাদানগুলো সূর্যের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষার পাশাপাশি ব্রণ দূর করে। এমনকি ওজন কমাতেও এর ভূমিকা আছে।

তাই রূপ লাবণ্য ও তারুণ্যকে ধরে রাখতে উপরিউক্ত খাবার গুলি আপনার খাদ্য তালিকায় রাখুন কারণ এসব খাবারের পুষ্টি উপাদান সমূহ আপনার বয়সের বলিরেখা দূর করে ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করবে। এ ছাড়া ত্বকের পানিশূন্যতা দূর করে ত্বককে করে স্বাস্থ্যজ্জ্বল ও দাগহীন।

One Response

  1. Clinton মার্চ ১১, ২০১৯

Leave a Reply