বাংলা ছায়াছবিঃ গোলাপী এখন ট্রেনে

গোলাপী এখন ট্রেনে

আমজাদ হোসেনের স্বরচিত উপন্যাস ‘দ্রোপদী এখন ট্রেনে’র চলচ্চিত্ররূপ গোলাপী এখন ট্রেনে সুধী মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এই ছবিতে আমজাদ হোসেন আমাদের সমাজের বাস্তব রূপকে নগ্নভাবে তুলে ধরেছেন। গোলাপী এখন ট্রেনে মুক্তি পায় ১৯৭৮ সালে। গল্প ও নির্দেশনায: আমজাদ হোসেন। প্রযোজনা: এফ. ডি. সি. ও। চিত্র গ্রহণ: রফিকুল বারী চৌধুরী। অভিনয়ে: ববিতা, ফারুক, রোজী সামাদ, আনোয়ার হোসেন, আনোয়ারা, এ. টি. এম. শামসুজ্জামান, রওশন জামিল, টেলি সামাদ, তারানা হালিম, আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ। সংগীত: আলাউদ্দিন আলী গীতিকার: গাজী মাজহারুল আনোয়ার, রফিকুজ্জামান। কন্ঠশিল্পী: সাবিনা ইয়াসমিন, সৈয়দ আব্দুল হাদী। শিল্প নির্দেশনা: বিজয় সরকার। টাইটেল ডিজাইন: সৈয়দ লুতফুল হক। তথ্যসূত্র: বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাস – অনুপম হায়াত।

কাহিনী সংক্ষেপঃ গাঁয়ের প্রভাবশালী ব্যক্তি মণ্ডল। তাঁর ছেলে মিলন পছন্দ করে দরিদ্র গায়েনের মেয়ে গোলাপীকে। একদিন মণ্ডলই গোলাপীর বিয়ের জন্য খোঁজ দেয় এক পাত্রের। কিন্তু বিয়েতে সাইকেল দিতে হবে। নিজের মনকে বশ করে গোপনে সাইকেলের টাকাটা দেয় মিলন। তবে শেষ পর্যন্ত ভেঙে যায় বিয়েটা। এ কারণে আত্মহত্যা করে গোলাপীর বাবা। দারুণ অভাবের মধ্যে পড়ে সংসার। এর হাল ধরতেই ট্রেনে চড়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে কাজ করে গোলাপী। গাঁয়ের মোড়লরা ভালো চোখে দেখে না গোলাপীর এ কাজ। যারা ট্রেনে কাজ করে গ্রাম থেকে তাদের বের করে দেওয়ার জন্য বসে সালিস।

Leave a Reply