বাংলা ছায়াছবিঃ গহীনে শব্দ

 

গহীনে শব্দ 

গহীনে শব্দ ২০১০সালের ২৬ মার্চ মুক্তিপ্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী চলচ্চিত্র । ইমপ্রেস টেলিফিল্ম এর এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন খালিদ মাহমুদ মিঠু। ছবির প্রধান তিনটি চরিত্র অভিনয় করেছেন ইমন, কুসুম সিকদার, আবুল হায়াত, সালিম সুলতান ও মাসুম আজিজ ।

এখানে নুরা একজন রাস্তার ভিখারী। মুক্তিযোদ্ধা ছিল সে। যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে রাজাকাররা ডাকাত সেজে এসে মুক্তিযোদ্ধার পা কেটে ফেলে। নিজে অশিক্ষিত আবার এই পঙ্গুত্ব। কি করবে ভেবে না পেয়ে নুরা ভিক্ষা করতে নেমে পরে। কিন্তু তার ইচ্ছা যে তার মেয়েকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াবে। সে তার সেই ইচ্ছা পূরন করে। ঢাকার রাস্তায় ভিক্ষা করে টাকা জমিয়ে মেয়ে “সপ্ন”কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ায়। নুরার গর্ব তার মেয়ে স্বপ্ন। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় “সপ্ন”র সাথে দেখা হয় “নিলয়” এর। একে অপরকে ভালবাসে তারা। নিলয় বিয়ে করতে চায় সপ্নকে। কিন্তু সপ্ন তো এসেছে অত্যন্ত গরিব পরিবার থেকে আর নিলয় তালুকদার পরিবারের ছেলে। সপ্ন জানে যে নিলয় তার পরিবারের ব্যপারে জানলে তাকে বিয়ে করবে না। সপ্ন খুবই বাস্তববাদী একটা মেয়ে কিন্তু নিলয়কে সে বলতে পারে না যে তার বাবা একজন ভিক্ষুক। একদিন ভিক্ষার করার সময় নিলয়ের সাথে নুরা-র দেখা হয়। কিন্তু নিলয় জানে না এই নুরা ভিক্ষুকই সপ্ন-র বাবা। ঐ সময় নিলয় তার মোবাইলে নুরা-র একটা ছবি তুলে রাখে।

এরই মাঝে নিলয় বলে ঈদের ছুটিতে বেড়াতে যাবে সপ্নের গ্রামের বাড়িতে। সপ্ন-র অনিচ্ছা সত্ত্বেও নিলয় তাকে রাজি করায়। নিলয় ঈদের ছুটিতে সপ্নের গ্রামের বাড়িতে আসে এবং সপ্নের বাবা নুরা-র সাথে দেখা হয়। দুজনেই চিন্তা করে যে তারা একে অপরকে কোথাও দেখেছে। কিন্তু সে সময় মনে করতে পারে না। সপ্নের গ্রামের বাড়ি থেকে ফেরার পথে মোবাইলে তুলে রাখা ছবি দেখে নিলয় মনে করতে পারে যে সপ্নের বাবা-ই নুরা ভিক্ষুক। কিন্তু সপ্নকে সে এটা জানায় না। বাসায় সপ্ন-র কথা বলবে সে সাহসও সে পায় না। আবার সমাজ কিভাবে নিবে তাদের এই সম্পর্ককে। হঠাৎ একদিন সপ্ন নিলয়ের মোবাইলে দেখতে পায় তার বাবার ছবি ভিক্ষুকের অবস্থায় এবং বুঝতে পারে নিলয় সব কিছু জানে। নিলয় জানে না সমাজ, পরিবার কিভাবে তাদের এই সম্পর্ককে বুঝবে। কিছু ভেবে না পেয়ে নিলয় উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে চলে যায় সপ্নকে একটা চিঠি লিখে তার অক্ষমতার কথা বর্ননা করে।

সুত্রঃ somewhereinblog.net। 

Leave a Reply