দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে যে খাবার

ওজন কমাতে সঠিক খাবার নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য স্বাস্থ্য সচেতনরা কতকিছুই না করে থাকেন। বিশেষ করে পরিমিত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করে ডায়েট কন্ট্রোল করা এর অন্যতম একটি উপায়। কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো দ্রুত ওজন কমাতে বেশ সহায়ক। অবাক হলেও সত্য যে এই খাবার গুলি খেয়ে আপনি ওজন কমাতে পারেন খুব সহজেই। আসুন এবার দেখে নেই দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে এমন কয়েকটি বিশেষ খাবার  বা ওজন কমানোর খাদ্য তালিকা সম্পর্কে-

ওজন কমানোর খাবার

ডিমের সাদা অংশ
ডিম প্রোটিনের খুব ভালো একটি উৎস। ডিম খেলে ওজন বাড়ে কথাটি সম্পূর্ণ ভুল। তবে ওজন কমাতে চাইলে ডিমের কুসুম এড়িয়ে চলাই ভালো। যারা ওজন কমাতে চাচ্ছেন তারা একটি ডিম রাখুন সকালের নাস্তায়। পুরো দিনটি শরীরে কাজ করার ক্ষমতা পাবেন। পাশাপাশি ওজন কমাতে পারবেন।

বাদাম
কাঠবাদাম স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভালো একটি খাদ্য। এতে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার এবং উপকারী তেল আছে যা ওজন কমাতে খুবই কার্যকরী। বাদামের ফাইবার ক্ষুধা কমায়। তবে খেয়াল রাখবেন বাদামে অনেক বেশি পরিমাণে ক্যালোরি রয়েছে, তাই প্রতিদিন ২০ গ্রামের বেশি খাবেন না।

আপেল
আপেল যে ওজন কমাতেও একটি কার্যকরী খাবার এটি অনেকেই জানেন না। আপেলে প্রচুর ফাইবার থাকে যা ক্ষুধার উদ্রেক কমায়। এবং শরীরে জমে থাকা ফ্যাট কাটতে সাহায্য করে। তাই ক্ষুধা লাগলে অস্বাস্থ্যকর হাবিজাবি খাবার না খেয়ে আপেল খান।

ফুলকপি
ফুলকপি ওজন কমাতে সাহায্য করে। এতে প্রচুর ফাইবার রয়েছে, তাই খাওয়ার পর পেট অনেকক্ষণ ভর্তি থাকে। ফলে অধিক ক্যালরির খাবার থেকে বিরত থাকা যায়, তাই ওজনও কমে। তা ছাড়াও এতে ইন্ডোল, গ্লুকোসাইনোলেট এবং থায়োসাইনেট রয়েছে যা শরীর থেকে টক্সিন বের করতেও সাহায্য করে।

দারুচিনি
দারুচিনি রক্তের গ্লুকোজের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণ করে। প্রতিদিন এক চা চামচ দারুচিনি খাওয়া দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে।

কমলা
এই সাইট্রাস ফলটি ভিটামিন সি তে ভরপুর। এর মধ্যে রয়েছে উচ্চ পরিমাণে প্রাকৃতিক চিনি। এটি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

ক্যাপসিকাম
লাল, হলুদ কিংবা সবুজ যে কোন ধরণের ক্যাপসিকাম খেতে পারেন রান্নায় ব্যবহার করে। ক্যাপসিকামে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি। এই ভিটামিন সি খুব সহজে ও খুব দ্রুত ওজন কমাতে সহায়তা করে।

ওটস
ওটস অনেক পুষ্টিকর এবং ফাইবার যুক্ত একটি খাবার। ওটস হচ্ছে ওজন কমানোর খুব ভালো একটি খাদ্য উপাদান। সকালের নাস্তায় এক বাটি ওটস খেলে ওজন খুব দ্রুত কমে যায়।

লেবু-মধুর পানীয়
ওজন কমাতে দুটি প্রাকৃতিক উপাদান লেবু ও মধুর সম্পর্কে অনেকেই জানেন। ওজন কমানো ছাড়াও লেবু ও মধুর অনেক গুণাগুণ আছে। এটি শরীর থেকে টক্সিন বের করে। শরীরের ভেতরের নালীগুলোর সব ময়লা বের করে দেয়। মেটাবলিজম বা হজম শক্তি বাড়ায়, ফলে ওজন কমে। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে।

খাবার তালিকায় এই খাবার গুলি যোগ করে অনায়াসেই কমিয়ে নিতে পারেন ওজন। পরিশেষে বলবো ওজন নিয়ন্ত্রণের মূল চাবিকাঠি আপনার নিজের হাতে। ওজন বৃদ্ধির কারণগুলো সম্পর্কে সচেতনা ও ওজন কমানোর উপায়গুলো সম্পর্কে জ্ঞান আহরণের মাধমে সফলভাবে ওজন কামাতে পারেন আপনি।

Leave a Reply